1. [email protected] : Live Rangpur :
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:৩১ অপরাহ্ন

তিস্তার নিষ্ফলা চরাঞ্চল এখন আলো ঝলমল ভবিষ্যতের উৎসভূমি

  • Update Time : শনিবার, ১১ মে, ২০২৪
  • ২১৯ Time View
তিস্তার নিষ্ফলা চরাঞ্চল এখন আলো ঝলমল ভবিষ্যতের উৎসভূমি
তিস্তার নিষ্ফলা চরাঞ্চল এখন আলো ঝলমল ভবিষ্যতের উৎসভূমি

দেশের বৃহত্তম সোলার প্লান্ট বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাওয়ার পর থেকেই বদলে গেছে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তিস্তাপারের তারাপুর ইউনিয়নের দুর্গম চর লাটশালা ও চর খোর্দা এলাকার চিত্র। দিনের আলোয় ঝলমলে সৌর প্যানেলগুলো শুষে নিচ্ছে সূর্যের রুপালি উত্তাপ, আর তাকে বিদ্যুতে রূপান্তর করে পৌঁছে দিচ্ছে ন্যাশনাল গ্রিডে। ঘরে ঘরে ছড়িয়ে দিচ্ছে আলোর বন্যা।

সোলার প্লান্টকে কেন্দ্র করে প্রায় জনমানবশূন্য দুটি বন্ধ্য এলাকা এখন মানুষের কোলাহল, সড়কপথে গাড়ির আনাগোনা, দর্শনার্থীদের ভিড়ে রাতারাতি নিয়েছে নাগরিক জীবনের রূপ।

এ দৃশ্য চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা কঠিন। পরিবেশবিদরা বলছেন, বৈশ্বিক উষ্ণতা কমাতে সারা পৃথিবীতে তৈরি হচ্ছে সোলার প্লান্ট। যা নিরাপদ পরিবেশের জন্য বড় ভূমিকা পালন করছে।গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ধু ধু বালুচরের পরিত্যক্ত ৬৫০ একর এলাকার জমিতে লক্ষাধিক মাউন্টিং পাইলসের ওপর সারি সারি সাজানো পাঁচ লাখ ৫০ হাজার সোলার প্যানেল।এসব সোলার প্যানেল থেকে ৬৪টি ইনভার্টারের মাধ্যমে প্রতিদিন উৎপাদিত হচ্ছে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। ২৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (তিন হাজার কোটি টাকা) ব্যয় করে তিস্তা সোলার লিমিটেড নামে ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন এই বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করে বেক্সিমকো গ্রুপের প্রতিষ্ঠান তিস্তা সোলার লিমিটেড।২০২৩ সালের ৮ জানুয়ারি থেকে সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করা হয়। গত ১৫ মাসে ৪২ কোটি ৩১ লাখ ইউনিট বিদ্যুৎ সরবরাহ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © Rangpur24.com  
Md Prince By rangpur24.com