1. [email protected] : Rangpur24.com : Mahfuz prince
রংপুরে করোনা রিপোর্ট পেতে সময় লাগছে ৫/৭ দিন - rangpur24
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন

স্যামসাং প্রিমিয়াম ব্র্যান্ড শপ এখন আর,এ,এম,সি শপিং কমপ্লেক্স এর পঞ্চম তলায়। শপ নংঃ- ২,৩,৪ প্রয়োজনেঃ- ০১৩২২৭১৪৮৪৭, ০১৮১৮৭০১৮৭২

রংপুরে করোনা রিপোর্ট পেতে সময় লাগছে ৫/৭ দিন

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৪৫ Time View

১০ লাখ জনসংখ্যার বিভাগীয় নগরী রংপুরে করোনা নমুনা পরীক্ষার কোটা নির্ধারন করে দেয়া হয়েছে মাত্র ৫০ জনের ॥ রিপোর্ট পেতে সময় লাগছে ৫/৭ দিন ॥

বিভাগীয় নগরী রংপুরে করোনা সংক্রমন ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। রংপুর সিটি করপোরেশন এলাকায় ১০ লাখেরও বেশী মানুষের বাস অথচ রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থাপিত পিসিআর মেশিন প্রতিদিন মাত্র ৫০ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করার কোটা নির্ধারন করে দিয়েছে। ফলে শত শত নারী পুরুষ নমুনা পরীক্ষার জন্য ভীড় করলেও তাদের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছেনা। অপরদিকে নমুনা নেবার পর ৫ থেকে ৭ দিনেও রিপোর্ট মিলছেনা। এদিকে গত ৮ দিনে ১০ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে।
স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানার পর বিভাগীয় নগরী রংপুরে করোনা সংক্রমন ভয়াবহ আকার ধারন করলেও নমুনা পরীক্ষা করার জন্য নগরবাসিকে চরম বিড়ম্বনার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থাপন করা পিসিআর মেশিনের সক্ষমতা হচ্ছে ১শ ৮৮টি নমুনা পরীক্ষার। সে কারনে রংপুর নগরী ছাড়া পুরো জেলা ও পার্শ্ববর্তী গাইবান্ধা , কুড়িগ্রাম , লালমনিরহাট এ চারটি জেলার মানুষের করেনার নমুনা পরীক্ষা করা হয় ওই মেশিন থেকে। এতে করে জেলা উপজেলা ও রংপুর সিটি করপোরেশনের জন্য কোটা নির্ধারন করে দেয়া হয়েছে। রংপুর সিটি করপোরেশন প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য দিতে পারবে। সেই ভাবেই রংপুর সিটি করপোরেশনের নমুনা পরীক্ষার কোটা নির্ধারন করে হয়েছে।
এ ব্যাপারে রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা, কামরুজ্জামান তার অসহায়ত্বের কথা স্বীকার করে বলেন রংপুর সিটি করপোরেশনের জন্য একটি আলাদা পিসিআর মেশিন দরকার। দশ লাখ মানুষের জন্য ৫০ জনের কোটা নির্ধারন করে দেবার কারনে বেশির ভাগ মানুষ নমুনা পরীক্ষার সুযোগ পাচ্ছেননা। ফলে আমরা নমুনা সংগ্রহ করলেও ৫/৭ দিনের আগে রিপোর্ট পাওয়া যায়না। এদিকে যে হারে করোনা সংক্রমন বাড়ছে তাতে করে আলাদা পিসি আর মেশিন স্থাপন করা জরুরী। তিনি বলেন এমনিতেই ৫গ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য কোটা নির্ধারন করে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে বিদেশ যাত্রী আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্য সহ ভিভিআইপিদের নমুনাই হয়ে যায় ২৫টির বেশী ফলে সর্ব্বচ্য ২০ থেকে ২৫ জনের নমুনা পিসিআর ল্যাবে পাঠানো যায়। এমনি অবস্থায় নমুনা জটের সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে ৩শর বেশী নমুনা পিসিআর ল্যাবে পড়ে আছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান করোনা সংক্রমনের সিমটম দেখা দেবার পর সচরাচর নমুনা পরীক্ষা আসতে মানুষ। কিন্তু সত্যি সত্যি করোনার আক্রান্ত হয়েছে অথচ তার নমুনার প্রতিবেদন আসে নাই ৫/৭ দিন সময় লাগছে। এই কয়েকদিন আক্রান্ত ব্যাক্তি নগরীতে ঘেরাফেরা স্বজনদের সাথে অবস্থান করায় প রিবারের অন্যন্য সদস্যরাও করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে । তিনি রংপুরে আরো একটি সিটি স্ক্যান মেশিন স্থাপন করার দাবি জানান।
সরেজমিন রংপুর নগরীর নিউ ইজ্ঞিনিয়ার পাড়া এলাকায় বিদ্যালয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় সেখানে শতাধিক নারী পুরুষ করোনার নমুনা দেবার জন্য অপেক্ষা করছে। এদের বেশীর ভাগের বয়স ২০ থেকে ২৫ বছর কারো কারো বয়স আরও কম। ফলে এবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউ অল্প বয়সী ছেলে মেয়েরাই আক্রান্ত হচ্ছে বেশী। এ ব্যাপারে নমুনা সংগ্রহ কারী দুজন স্বাস্থ্য কর্মী জানান কম বয়সী ছেলে মেয়েরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে যেহেতু তাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশী ফলে তারা আক্রান্ত হবার পর তার পরিবারে বয়স্ক মানুষরা আক্রান্ত হচ্ছে এবং তারাই গুরতর অসুস্থ হয়ে মারা যাচ্ছে বলে জানান।
বিদ্যালয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নমুনা দেবার জন্য অপেক্ষামান দুই তরুনী জানান নমুনা দেবার পর ৫/৭ দিনের আগে রিপোর্ট পাওয়া যায়না। ফলে আদৌ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে কিনা তা বোঝার উপায় থাকেনা। ফলে নমুনা দেবার একদিন পরেই প্রতিবেদন দেয়ার ব্যবস্থা নেয়া উচিত।
সার্বিক বিষয় জানতে রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সাথে তার কার্যালয়ে গিয়ে কথা বললে তিনি এ প্রতিনিধিকে বলেন নমুনা দেবার পর অনেক সময় লাগছে এটা মারাত্মতক ভীতির কারন আমরা বার বার বলছি এখানে আলাদা একটা পিসিআর মেশিন বসানো হোক তা ন হলে করোনার সংক্রমন এবার মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন তিনি। এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন ১০ লাখ মানুষের বাস সিটি করপোরেশন এলাকায় সেখানে মাত্র ৫০ জনের করোনা পরীক্ষার কোটা নির্ধারন করা যুক্তিযুক্ত নয় সে কারনে দ্রুত আরো একটি পিসিআর মেশিন স্থাপন করার জন্য তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের কাছে দাবি জানান।
এদিকে রংপুর করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক অধ্যাক্ষ খায়রুল আনাম বেজ্ঞু জানান রংপুরে এবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানতে গত বছরের চেয়ে বেশী। কিন্তু নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থাপনায় ক্রটি আরো একটি পিসিআর মেশিন স্থাপন করা জরুরী হয়ে পড়েছে বলে জানান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 রংপুর২৪ডটকম-সত্য প্রকাশে সারাক্ষণ[email protected]767414680
Md Prince By rangpur24.com