April 13, 2021, 12:58 am

স্যামসাং প্রিমিয়াম ব্র্যান্ড শপ এখন আর,এ,এম,সি শপিং কমপ্লেক্স এর পঞ্চম তলায়। শপ নংঃ- ২,৩,৪ প্রয়োজনেঃ- ০১৩২২৭১৪৮৪৭, ০১৮১৮৭০১৮৭২

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে লীলা কীর্ত্তণ।হাজারও ভক্তের ঢলে মূখরিত

Reporter Name
  • Update Time : Monday, March 1, 2021
  • 94 Time View

চারদিন ব্যাপী এক বিশাল মহানাম যজ্ঞ মহোৎসব ও অপ্রাকৃত লীলা কীর্ত্তনের আয়োজন করা হয়েছে।লীলা কীর্ত্তণ উপভোগ করতে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আসা হাজারও ভক্তের ঢলে মূখরিত কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোর ইউনিয়নের রাবাইতারী সার্বজনীন দোল মন্দির প্রাঙ্গন। যেন এক মিলন মেলায় পরিনিত হয়েছে। অনেক ভক্ত দুর-দুরান্তর থেকে আসা আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে দেখা হওয়ায় অনেকটা আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। যেন কয়েক বছর পর আপনজনদের দেখা এই অনুষ্ঠান প্রাঙ্গনে।

এই অনুষ্ঠানটি ভক্তরা শান্তিপূর্ণভাবে উপভোগ ও সফল করতে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ও গ্রাম পুলিশসহ কমিটির লোকজনও কঠোর নিরাপত্তা দায়িত্ব পালন করছেন।

সোমবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে জানা দেখা, উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নের হিন্দু সম্প্রদায়রা আন্তঃ উপজেলা নামযজ্ঞ মহোৎসব উদযাপন পর্ষদ (সংগঠনটি) গত ১২ বছর ধরে এ অনুষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে বলে জানান সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক কার্ত্তিক চন্দ্র সরকার।

সোমবার (১লা মার্চ) ভোর ৬ টা থেকে অপ্রাকৃত লীলা কীর্ত্তন শুরু হয়। এই অপ্রাকৃত লীলা কীর্ত্তন মঙ্গলবার ভোর ৬ টায় সমাপ্তি ঘটবে। জাঁকজঁমক পূর্ণ ভাবে অপ্রাকৃত লীলা শিল্পীরা লীলা কীর্ত্তন পরিবেশন করে অনুষ্ঠানে আসা হাজার হাজার ভক্তের মন জাগিয়ে তুললেন এবং ভক্তের মনকে মাতিয়ে তুলছেন।

মঞ্চে এই তিন গুণী লীলা শিল্পী নিজেই কাদঁলেন এবং হাজার ভক্তদেরকেও কাদাঁলেন বগুড়া থেকে আগত সারা জাগানো লীলা শিল্পী সুজাতা মোহন্ত, সাতক্ষিরা থেকে ধর্মদাস সরকার (পাপ্পু), চাপাই নবাবগঞ্জ নরোত্তম দাস (বাবলু)।

জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার বেরুবাড়ী থেকে আসা মাধবী রানী রায় অনেকদিন পর এই অনুষ্ঠানে তার মা আরতী বালা রায় (৭৫)কে দেখা পাওয়ায় কান্নায় ভেঙ্গে পরেন এবং তার বৃদ্ধ মাকে জড়িয়ে ধরেন। যেন এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। শুধু মাধবী রানী নয় এই অনুষ্ঠানে অনেক ভক্তই তার আপনদের দেখা পান।

এ ব্যাপরে আন্তঃ উপজেলা নাম যজ্ঞ মহোৎসব উদযাপন পর্ষদের সাধারণ সম্পাদক কার্ত্তিক চন্দ্র সরকার জানান, দুর-দুরান্তের ভক্তরা শান্তিপূর্ণ ভাবে মহানাম যজ্ঞ মহোৎসব ও অপ্রাকৃত লীলা কীর্তন উপভোগ করছে। অনুষ্ঠানে থানা পুলিশ ও গ্রাম পুলিশের টহল অব্যাহত আছে। পাশাপাশি কমিটির লোকজন সজাগ আছে। এছাড়াও কোন ধরনের অনাকাংখিত ঘটনা এড়াতে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়েছেন।

গত শনিবার ঘটস্থাপন, অধিবাস ,ধর্মীয় আলোচনা, কুইজ প্রতিযোগিতা, গীতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, ভজন সংগীত, শিক্ষা বৃত্তি ও সম্মাননা স্মারক প্রদান, রোববার মহানাম যজ্ঞ মহোৎসব, সোমবার অপ্রাকৃত লীলা কীর্ত্তন পরিবেশন ও মঙ্গলবার দুপুরে কুঞ্জ ভঙ্গ ও মোহন্ত বিদায়ের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category