ব্রেকিং নিউজ-
নতজানু নীতি পরিহার করে তিস্তা-সহ ৫৪টি অভিন্ন নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করুন--------কমরেড খালেকুজ্জামান** রংপুরে দুদিন ব্যাপী ফ্রি ডেন্টাল ক্যাম্প উদ্ভোধন ** রংপুরে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর ৯০ তম জন্মদিন পালন ** রংপুরে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানব্বন্ধন সমাবেশ ** উলিপুরে ‘দৈনিক ভোরের ডাক’ পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকা পালিত** রংপুরে সিলেকশন গ্রেড এর দাবিতে মানব বন্ধন ও পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও ** কাদেরের বাইপাস সার্জারি চলছে, দেশবাসীর দোয়া কামনা** রংপুর জেলা রেস্তোরাঁ শ্রমিক ইউনিয়নের বিশেষ সাধারন সভা অনুষ্ঠিত** লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় অগ্নিকান্ডে প্রায় ৯ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি** রংপুরে আ.লীগের প্রার্থীকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ **

বগুড়া জেলা আ’লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আর নেই

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , সারা বাংলা

16 February, 2019 -> 11:57 pm.

প্রবীণ রাজনীতিবিদ, মুক্তিযোদ্ধা ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত ৩ টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে ও দুই ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. আহসান হাবিব তার মৃত্যুর বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন। অধ্যক্ষ ডা. আহসান হাবিব মমতাজ উদ্দিনের ভায়রা ভাই। মরহুমের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, রোববার বাদ যোহর বগুড়ার ঐতিহ্যবাহী আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে ও বাদ আসর স্থানীয় মানিকচক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে চিরশায়িত করা হবে। অধ্যক্ষ ডা. আহসান হাবিব জানান, দীর্ঘদিন ধরে মমতাজ উদ্দিন ডায়াবেটিস, হৃদরোগ ও কিডনি জটিলতাসহ বার্ধক্যজনিত নানারোগে ভুগছিলেন। চোখের চিকিৎসার জন্য তিনি গত ৪ ফেব্রুয়ারি ভারতে যান। সেখানে চিকিৎসা শেষে তিনি গত ১২ ফেব্রুয়ারি দেশে ফেরেন। এদিকে দেশে ফেরার পর আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। শনিবার সকালে তাকে বগুড়া ডায়াবেটিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন শনিবার দিনগত রাত ৩টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হন মমতাজ উদ্দিন। সেসময় তাকে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্র (আইসিইউ)নেওয়া হয়। পরে সেখানেই মারা যান প্রবীণ এ রাজনীতিবিদ। মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দিন ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। ছাত্র থাকাকালেই তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭২ সালে তিনি বগুড়া জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নির্বাচিত হন। ১৯৭৪ সালে তিনি বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত হন। পরবর্তীতে ১৯৮২ সালে মমতাজ উদ্দিন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৮৫ সালে তিনি বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। প্রায় এক দশক সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৯৯৪ সালে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন মমতাজ উদ্দিন। ২০০৪ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে ও ২০১৪ সালের ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সম্মেলনে তিনি পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১৬ সালের অক্টোবরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিনিয়র সদস্য (ক্রমানুযায়ী দ্বিতীয় সদস্য) নির্বাচিত হন। এদিকে রাজনীতিবিদ ছাড়া মমতাজ উদ্দিন ব্যবসায়ী হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। তিনি বগুড়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির একাধিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) একাধিকবার পরিচালক নির্বাচিত হন।