ব্রেকিং নিউজ-

ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির গুলিতে নিহতের ঘটনায় তদন্ত শুরু

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , ঠাকুরগাঁও

16 February, 2019 -> 9:50 am.

ঠাকুরগাঁও হরিপুরের বহরমপুরে গরু জব্দকে কেন্দ্র করে বিজিবির সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষে তিনজন বাংলাদেশি নিহতের ঘটনার তদন্ত কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসনের সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি। আজ শনিবার বিকালে (৫টায়) জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক নূর কুতুবুল আলমের নেতৃত্বে সাত সদস্যের তদন্ত টিম প্রথমে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের জবানবন্দী রেকর্ডিং করে লিপিবব্ধ করেন। এর আগে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শনিবার সকালে বহরমপুর গ্রামে মাইকিং করে প্রত্যক্ষদর্শীসহ গ্রামবাসীদের বিকেল চারটায় ঘটনাস্থলে থাকার আহ্বান জানানো হয়। বিকেল চারটায় তদন্ত কমিটি গ্রামে উপস্থিত হওয়ার কথা থাকলে প্রায় একঘণ্টা পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এ সময় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্য ছাড়াও প্রত্যক্ষদর্শীরা তদন্ত কমিটির কাছে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরেন। গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন, নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে হরিপুর থানায় মামলা করতে গেলে তাদের মামলা নেয়নি পুলিশ। উল্টো ঘটনায় নিহত দুই ব্যক্তিসহ উনিশ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে বিজিবি। বিজিবির দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার আতঙ্কে গ্রামের অনেকেই এখন রাতে বাড়িতে থাকতে ভয় পাচ্ছে। এই ঘৃণ্য ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত, বিচার ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন ও গ্রামবাসী। এদিকে ক্ষতিগ্রস্তদের মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান জানান, তার কাছে মামলার বিষয়ে কেউ আসেনি। বিজিবির করা মামলার তদন্ত করছে পুলিশ। তবে পুলিশ পক্ষথেকে গ্রামবাসীর কাউকে হয়রানি করা হচ্ছে না। জেলা প্রশাসনের গঠন করা তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক নূর কুতুবুল আলম জানান, সম্প্রতি যা ঘটে গেছে তা অবশ্যই দু:খজনক। এ ঘটনায় সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তে কাজ করছে তদন্ত কমিটি। কোনো নিরীহ মানুষ যেন অহেতুক হয়রানি না হয় তা নজর রাখছে প্রশাসন। পাশাপাশি দোষী ব্যক্তিদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। উল্লেখ্য যে, গত ১২ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকালে বিজিবির সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষে বেতনা ক্যাম্পের বিজিবির ছোঁড়া গুলিতে তিনজন বাংলাদেশি নিহত ও আহত হয় পনেরো জন। এতে বিজিবির প্রায় পাঁচ সদস্য আহত হয়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার নিহত তিন পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তন্ময় কুমার সাহা। আর শুক্রবার নিতহ দুই ব্যক্তিসহ ১৯ জনের নাম উল্ল্যেখ করে অজ্ঞাত আরো দুইশত পঞ্চাশ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে হরিপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন ৫০ বিজিবির নায়েব সুবেদার জিয়াউর রহমান।