ব্রেকিং নিউজ-

চিরিরবন্দরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খুন

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , দিনাজপুর

7 February, 2019 -> 8:00 am.

দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলায় জমির বিরোধের জের ধরে ছোট ভাইকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বড় ভাই। এ ঘটনায় জড়িত কাউকেই আটক করতে পারেনি পুলিশ। গত মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় উপজেলার আব্দুলপুর ইউনিয়নের বানীযুগী গ্রামের রহিম শাহ পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুল বারী (৫০) হলেন বানীযুগী রহিম শাহ পাড়ার মৃত ধনিবুল্ল্যাার ছেলে। গুরুত্বর আহত হন শ্যালক একই এলাকায় আব্দুল খালেক। আজ বৃহস্পতিবার সকালে চিরিরবন্দর থানার (ওসি) মো হারেসুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এলাকাবাসী সুত্র যানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত ধনিবুল্ল্যাা শাহ এর ছেলে আব্দুল গনি ও আব্দুল বারীর মধ্যে জমিজমা নিয়ে আদালতে মামলা মোকদ্দমা চলিয়া আসতেছিলো এবং রায় না হওয়া পর্যন্ত উচ্চ আদালত থেকে প্রায় ৬.০০ একর জমির উপরে ১৪৪ ধারা জারি করা ছিলো। কিন্তু আদালতের রায় উপেক্ষা করে গত ৫ ই ফেব্রুয়ারী আব্দুল গনি ও তার ছয় ছেলে এবং চার মেয়ে ওদুত (৪৫) আব্দুল কুদ্দুস (৪২) সালাম(৩৫) কালাম (২৬) মতিউর (২২) ফাতেমা (২০) নুর বেগম (১৯) তহমিনা (১৮) বুলবুলি(১৭) জোর পূর্বক জমিতে হাল চাষ করতে গেলে আব্দুল গনির ছোট ভাই আব্দুল বারী তার বড় ভাইকে আদালতের রায় নিয়ে জমিতে আসতে বলে এবং বাধা প্রদান করতে গেলে বাক বিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে আব্দুল গনির হুকুমে তার ছেলেরা আব্দুল বারীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় কোপ মারে পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত্যর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ৭ ই ফ্রেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আট ঘটিকায় তার মৃত্যু হয়। একই দিনে অপরদিকে আব্দুল খালেকের বাম পায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দিলে শরীর থেকে পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আক্তার বানুকে দা দিয়ে কুপিয়ে মাথায় গুরুতর জখম করে আহত করে। আহতরা দিনাজপুর আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। দিনাজপুর আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহতদের স্বজনদের আহজারীতে বাতাস ভারী হয়ে উঠে। এ ঘটনার পর শত শত মানুষ ছুটে আসে হাসপাতালে। ভাইদের মধ্যে জমির জের ধরে দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধ ছিলো বলে স্থানীয়রা জানান। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে হত্যা মামলা হয়েছে যাহার মামলা নং-৩/১৯। চিরিরবন্দর থানার ওসি হারেসুল ইসলাম এর নেতৃত্বে আসামিদের ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি।