ব্রেকিং নিউজ-
হিলি স্থলবন্দরে ভারত থেকে আমদানি হচ্ছে কাঁচামরিচ প্রতিকেজি ১০৩ /১০৫ টাকায়** হাকিমপুর পৌর সভায় কর্মবিরতি চলায় : বিপাকে পড়েছে পৌরবাসী** ফুলবাড়ীতে পাবলিক সার্ভিস দিবস পালন** এরশাদের কবর জিয়ারত করলেন ঢাকা মহানগর উত্তরের নেতাকর্মীরা ** রংপুরে“কন্যা শিশুর জন্য নিরাপদ বিদ্যালয়” ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত** গোবিন্দগঞ্জে কিডনি পাচারকারি দালাল চক্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধণ** রংপুর মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ পালনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ** রংপুর মহানগর যুবলীগ নেতা বাশার মুরাদের নেতৃত্বে নগরীতে আনন্দ র‌্যালী** রংপুরে কাঁচা মরিচের ‘দ্বিগুণ ঝাল’** রংপুরে হারিয়ে যাচ্ছে দেশি সুজি কচু**

লালমনিরহাটে ব্রয়লার ব্যবসায়ীদের দুদিন একের পর এক বন্ধ হচ্ছে খামার

রকিবুল হাসান রিপন

ষ্টাফ রিপোর্টার, লালমনিরহাট

1 February, 2019 -> 8:44 am.

বেকার সমস্যা সমাধানে নিজ উদ্যোগে নিজ বাড়ির পাশেই স্বল্প সময়ে বেশি লাভের আশায় কিছু পুঁজি বিনিয়োগ করে ব্রয়লার মুরগির খামার করেছিলেন শত শত বেকার যুবক । প্রথম প্রথম এসব খামারিরা প্রতিমাসেই কিছু লাভের মুখ দেখলেও খাদ্য দ্রব্য , ওষুধ ও বাচ্চার অব্যাহত দাম বৃদ্ধি, উৎ পাদিত ব্রয়লারের দাম কমে যাওয়ার কারনেই অনেক খামারিই তাদের স্বপ্নের খামার বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন । এভাবেই গত ১০ বছরের তুলনায় খামারের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে প্রায় দ্বিগুনের বেশি। প্রানিসম্পদ বিভাগের পরামশ ছাড়াই খামারিদের পরামশ নিয়েই গড়ে উঠেছিলো এসব খামার ।কেউ কেউ এ ব্যবসায় সু দিনের আশায় খামারে উৎ পাদন কমিয়ে ধরে রেখেছেন ব্যবসার হাল । জেলার বেশির ভাগ খামার বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারনে অনেকই হয়েছেন বেকার । ৫ বছর আগে বয়লার মুরগির খাবারের ৫০ কেজি বস্তার দাম ছিলো ১২ টাকা এখন সেই খাবারের বস্তার দাম ২ হাজার ৩ শত ৬০ টাকা ।৫ বছর আগে মূরগির বা”চার দাম ছিলো প্রতি পিছ ১২ থেকে ১৪ টাকা এখন ৩০ টাকা , বেড়েছে ঔষধ ও শ্রমিকের দামও কিš‘ উৎপাদিত মুরগির দাম বাড়েনি । ৫ বছর আগে প্রতি পিছ মুরগি বিক্রি হয়েছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায় এখন ও ৮০ টাকা । প্রতি চালানে হাজার হাজার টাকা লোকসান গুনতে হ”েছ খামারীদের ।অব্যাহত লোকসানের কারনে গত দু বছর আগে খামার বন্ধ করে দিয়েছেন হাতীবান্ধার সাজু । এক বছর আগে খামার বন্ধ করে দিয়েছেন পাটগ্রামের সফল খামারী সুমন । এছাড়াও যেগুলো খামার এখনো দৃশ্যমান সেগুলোর বেশির ভাগই ফাকা পড়ে আছে । খামারীদের দাবী বাজার সঠিক মনিটরিং করলেই খাবারের দাম সহনিয় অব¯’ায় থাকতো । বাজারে খাদ্যের দাম সহনিয় থাকলেই তাদের স্বপ্নের খামার বন্ধ করে দিতে হত না । ইতিমধ্যেই কিছু খামার বন্ধের কথা স্বীকার করে জেলা প্রসাশক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জানান , যদি কেউ অন্যায় ভাবে খাবারের দাম বাড়িয়ে থাকে সঠিক তদারকির মাধ্যমে আমরা তার বির“দ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যব¯’া গ্রহন করবো ।