নবম ওয়েজবোর্ডের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব পাচ্ছে

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

26 January, 2019 -> 7:09 am.

নবম ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে সরকার বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, নবম ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে সরকার বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে। নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকেই এটা এজেন্ডা আকারে উঠেছে। নতুন করে এ সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিও হয়েছে। সেখানে সিনিয়র মন্ত্রীদের রাখা হয়েছে। এমনকি আমরা কমিটিতে যারা আছি, তারা বিষয়টিকে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছি তার প্রমাণ হচ্ছে- শনিবার বন্ধের দিন আমরা মন্ত্রীরা এটা নিয়ে বসে মিটিং করলাম। সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের বেতন-ভাতা বাড়াতে শনিবার সচিবালয়ে নবম ওয়েজবোর্ড নিয়ে গঠিত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। বৈঠকে ফলপ্রসু কিছু হয়েছে কিনা জানতে চাইলে কমিটির প্রধান ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই মুহূর্তে বলার মতো কিছু আমাদের হাতে নেই। আমরা নবম ওয়েজবোর্ড নিয়ে নতুন একটি জার্নি শুরু করেছি মাত্র। এই জার্নিতেই আশা করছি আমরা এর সমাধান করতে পারব।’ তিনি বলেন, ‘আমরা একটি বটম লাইন ধরে এগুচ্ছি। বটম লাইন হচ্ছে, আমরা কো-অপারেশন শুরু করেছি। আশা করি, কো-অপারেশনের মাধ্যমে একটা সমাধানে পৌঁছা যাবে।’ ইলেকট্রনিক মিডিয়ার বিষয়টি নবম ওয়েজবোর্ডে যুক্ত করা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘টেলিভিশনের বিষয়টিকে আমরা গুরুত্ব দেব। এটা আমাদের আলোচনার মধ্যে আসবে।’ তিনি বলেন, ‘বৈঠকে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। সম্পাদকরা আমাদের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন। তারা তাদের মনের কথা ব্যক্ত করেছেন। তথ্যমন্ত্রী এর আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। আবারও আমরা কথা বলব। তবে আজ কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আশা করছি, আলোচনার মাধ্যমে ভালো একটা সমাধানে পৌঁছাতে পারব।’ শর্ট নোটিশে নোয়াবের নেতারা বৈঠকে যোগ দেওয়ায় ধন্যবাদ জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ধন্যবাদ জানাই নোয়াবের (সংবাদপত্র সম্পাদকদের সংগঠন) নেতাদের, কারণ শর্ট নোটিশে এসে আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন তারা।’ ভূঁইফোড় অনলাইন চিহ্নিত করা হচ্ছে মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানান, ভূঁইফোড় অনলাইন চিহ্নিত করা হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হয়েছে। সম্প্রচার নীতিমালার আলোকে আমরা এগুলোর রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করলে যেগুলো ভূঁইফোড় তখন সেগুলো অটোমেটিক্যালি তখন ফেজ আউট হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে কাজ চলছে এবং শিগগিরই আমরা এটা করব। আমি শুরু থেকেই বলেছি, কিছু অনলাইন আছে যেগুলো সত্যিকার অর্থে ভালো সংবাদ পরিবেশন করে। যেগুলোর প্রয়োজন আছে। অনলাইনের অবশ্যই প্রয়োজন আছে। এটা আজকের পৃথিবীর বাস্তবতা। কিন্তু কিছু ভূঁইফোড় অনলাইন আছে যারা সত্য সংবাদের চেয়ে প্রপাগান্ডার কাজে লিপ্ত। এগুলোকে চিহ্নিত করা হবে।’ সম্প্রচার নীতিমালা অনুযায়ী এগুলোর রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করার একটা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান ড. হাছান মাহমুদ। অনেক সময় নামসর্বস্ব পত্রিকার নামে অ্যাক্রেডিটেশন কার্ড ইস্যু করতে দেখা যায়- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আজকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এগুলো আমরা রিভাইজ করব।’ সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মন্ত্রিসভা কমিটির সদস্য ছাড়াও তথ্যসচিব আবদুল মালেক, প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম ও দৈনিক মানবজমিনের সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।