সেতুটি মরণফাঁদ, ঝুঁকি নিয়ে চলছে যান

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , ঠাকুরগাঁও

24 January, 2019 -> 1:15 am.

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার কচুবাড়ি-কৃষ্টপুর গ্রামে ছোট সেনুয়া নদীর উপর পুরাতন সেতুটি এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিটি মুহূর্তে অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই এই সেতু দিয়ে যান চলাচল করছে। খবর ইউএনবি’র স্থানীয়রা জানায়, সেতুটি একদিকে যেমন দেবে গেছে তেমনি দু’পাশের পিলার ভেঙে ঝুলে পড়েছে। সেতু রক্ষার জন্য এক পাশের গাঁথুনি দেয়া হলেও তা দেবে গেছে। আর অন্য পাশের গাঁথুনি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এর ফলে সেতুটির দুই পাড়ের সংযোগ সড়কের মাটিও সরে গেছে। এতটা ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার পরও চলাচলের বিকল্প সড়ক না থাকায় ঝুঁকি নিয়েই এই সেতু দিয়ে পারাপার হচ্ছে যানবাহন। সম্প্রতি এলাকাবাসী নিজ উদ্যোগে বাঁশ দিয়ে সেতুটির দুপাশের সংযোগ সড়ক রক্ষার চেষ্টা করেছেন। যানবাহনের চাপে সেটাও বিধ্বস্ত প্রায়। কোনো ভারী যান সেতুটি পার হতে গেলে যেকোনো মুহূর্তে তা ভেঙে পড়ে প্রাণহানীর আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। স্থানীয় সূত্র জানায়, ঠাকুরগাঁও শহর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার উত্তরে মহাসড়ক থেকে পশ্চিমে কচুবাড়ি কৃষ্টপুর গ্রামে ছোট সেনুয়া নদীর উপর এই সেতুটি কোনো রকমে দাঁড়িয়ে রয়েছে। কচুবাড়ি কৃষ্টপুর গ্রামের মোটাই বর্মণ, সুদাও বর্মন, চন্দন ও আছির উদ্দিন জানান, দীর্ঘদিন থেকে সেতুটি প্রায় ভাঙা অবস্থায় রয়েছে। ঊর্ধ্বতন কৃর্তৃপক্ষের কাছে বহুবার ধর্ণা দিয়েও কোনো কাজ হয়নি। স্থানীয় এইচ আর ব্রিক্সের স্বত্বাধিকারী হাফিজুর রহমান চুন্নু বলেন, সেতুর দু’পাশে তিনি একদিন নিজ খরচে মাটি ভরাট করে দিয়েছেন। কিন্তু সরকারিভাবে সেতু বা সড়ক ঠিক করা হচ্ছে না। এ ব্যাপারে সালন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মুকুল জানান, তিনি সংসদ সদস্যসহ এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলীকে সেতু পুনঃনির্মাণের জন্য দরখাস্ত দিয়েছেন। কিন্তু লাভ হয়নি।