ব্রেকিং নিউজ-
ঠাকুরগাঁয়ে তিন দিন পর নিখোঁজ গৃহপরিচারিকা উদ্ধার ** লালবাগ রেলওয়ে বস্তির ভুমিহীনদের অবিলম্বে সরকারী খাসজমিতে পুনর্বাসনের দাবিতে স্মারকলিপি পেশ** জনতা ব্যাংক লিঃ রংপুরে মহিলা গ্রাহক সেবা সপ্তাহ পালিত** রংপুরে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের উদ্বোধন ঘোষনা করেন – প্রধানমন্ত্রী** হাতীবান্ধায় পেঁপের বাম্পার ফলন** ডোমারে একই স্থানে কর্মী সম্মেলন-ফুটবল টুর্নামেন্ট নিয়ে উত্তেজনা** লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই সহদর আটক** রংপুর এক্সপ্রেসের ৪৫ যাত্রীর জরিমানা** কাল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন** রংপুরে ক্রিকেট লীগের ৪র্থ রাউন্ড কাল শুরু**

জেনারেশন গ্যাপে পড়ে বিলীন হয়ে যেতে পারে বিএনপি, বিশেষজ্ঞদের মতামত

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

5 October, 2018 -> 2:47 am.

সীমাহীন দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদে সরাসরি মদদ দেওয়া, রাষ্ট্রকে বিদেশি শক্তিদের গোলাম রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্রের কারণে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি-জামায়াত জোটকে। নিজ ভুলের কারণে গত এক দশক ধরে ক্ষমতার বাহিরে বিএনপি। এছাড়া ২০১৪ সালে নির্বাচনের পূর্বে বিএনপির নাশকতার রাজনীতি দেখে নতুন প্রজন্ম বিএনপির প্রতি অসন্তুষ্ট এবং ভীত। বিশেষ করে ২০০১ সালের পর যারা জন্মগ্রহণ করে বিএনপির অপরাজনীতি দেখেছেন তারা বিএনপির প্রতি নাখোশ বলে মন্তব্য করেছেন একাধিক রাজনৈতিক বিশ্লেষক। জেনারেশন গ্যাপ ক্রাইসিসে পড়ে বিএনপি এক সময়ে রাজনীতি থেকে হারিয়ে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্লেষকরা। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ভুল রাজনীতির কারণে বিএনপি নতুন প্রজন্মের সমর্থন হারিয়ে কালের অতল গহ্বরে বিলীন হয়ে যেতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন বিশ্লেষকরা। সূত্র বলছে, বিএনপির বর্তমান দুরাবস্থার জন্য দলীয় ভুল সিদ্ধান্ত, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের স্বৈরাচারী আচরণ, রাষ্ট্র বিরোধী কার্যকলাপ দায়ী। ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, স্বদেশ বিরোধী শক্তিদের সরাসরি মদদদান, যুদ্ধাপরাধীদের আশ্রয়-প্রশ্রয়দান করে গণবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। ২০০০ পরবর্তী প্রজন্ম বিএনপিকে দেখেছে কখনো স্বার্থ উদ্ধারে দেশকে অচল করে দিতে, কখনো দেখেছে ক্ষমতার লোভে রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে জ্বালাও-পোড়াও করতে। এই বিএনপিই রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করার নামে পেট্রেল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষকে হত্যা করেছে। যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে সারাদেশে তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে। এই বিএনপি গণতান্ত্রিক ধারাকে বাধাগ্রস্ত করতে বিদেশে বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। ধর্মকে ব্যবহার করে সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘর, উপাসানলয়ে হামলা করেছে বিএনপি-জামায়াত জোটের কর্মীরা। বিএনপি জুড়িশিয়াল ক্যু করে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখলের পাঁয়তারা করেছে। বিএনপির প্রতিটি সিনিয়র নেতার নামে চুরি, দুর্নীতি, অর্থপাচারের মামলা রয়েছে। এক কথায় নতুন প্রজন্ম বিএনপির ধ্বংসাত্মক রূপ দেখছে। দেশকে পিছিয়ে দিতে বিএনপির ষড়যন্ত্র দেখেছে তরুণ প্রজন্ম। বিএনপির আসল রূপ দেখেছে তারা। তারই প্রতিফলন ঘটেছে সাম্প্রতিক সময়ে অনুষ্ঠিত সিটি নির্বাচনের ফলাফল দেখে। এই নির্বাচনগুলোতে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধিরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপিকে। তাই বিএনপির প্রতিটি সমাবেশ-অনুষ্ঠানে তরুণ প্রজন্মের অনুপস্থিতি ছিল নজরে পড়ার মতো । মূলত জেনারেশন গ্যাপে পড়েছে বিএনপি। এই বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের একজন অধ্যাপক বলেন, বিএনপির অপরাজনীতির সব ষড়যন্ত্র ও কৌশল স্বচক্ষে দেখছে এই প্রজন্মের সচেতন প্রতিনিধিরা। তারা বিএনপিকে চেনে স্বদেশ বিরোধী, যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গী হিসেবে। তাদের কাছে বিএনপির রাজনীতি মানেই ধ্বংস ও মানুষ হত্যা। বিএনপির রাজনীতিতে তারা সৃষ্টিশীল কিছু পায়নি। আওয়ামী লীগের উন্নয়ন রাজনীতির বিপরীতে বিএনপি তরুণ প্রজন্মের কাছে ক্ষমতালোভী দুর্নীতিবাজদের আখড়া হিসেবে পরিচিত। খেয়াল করলে দেখবেন বিএনপিতে তুলনামূলক তরুণ ও নতুন প্রজন্মের উপস্থিতি খুবই কম। জেনারেশন গ্যাপে পড়েছে বিএনপি। বিএনপির নষ্ট রাজনীতি দেখেই তারা দল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। এরকম আর কয়েক বছর চললে বিএনপি হয়ত রাজনীতি থেকেই বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। পরবর্তী প্রজন্ম হয়ত ইতিহাসের পাতায় দেশ বিরোধী, জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদের মদদদাতা হিসেবেই বিএনপিকে খুঁজে পাবে।