ব্রেকিং নিউজ-
ঠাকুরগাঁয়ে তিন দিন পর নিখোঁজ গৃহপরিচারিকা উদ্ধার ** লালবাগ রেলওয়ে বস্তির ভুমিহীনদের অবিলম্বে সরকারী খাসজমিতে পুনর্বাসনের দাবিতে স্মারকলিপি পেশ** জনতা ব্যাংক লিঃ রংপুরে মহিলা গ্রাহক সেবা সপ্তাহ পালিত** রংপুরে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের উদ্বোধন ঘোষনা করেন – প্রধানমন্ত্রী** হাতীবান্ধায় পেঁপের বাম্পার ফলন** ডোমারে একই স্থানে কর্মী সম্মেলন-ফুটবল টুর্নামেন্ট নিয়ে উত্তেজনা** লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই সহদর আটক** রংপুর এক্সপ্রেসের ৪৫ যাত্রীর জরিমানা** কাল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন** রংপুরে ক্রিকেট লীগের ৪র্থ রাউন্ড কাল শুরু**

অভ্যন্তরীণ কোন্দোলে বিএনপি, জর্জরিত সিন্ডিকেট

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

5 October, 2018 -> 2:45 am.

নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে, বিএনপির দলীয় কোন্দোল ততোই ঘনীভূত হচ্ছে। দলের সিনিয়র একাধিক নেতারা একে অপরকে সহ্য করতে পারছেন না বলে জানিয়েছে নির্ভর যোগ্য একটি সূত্র। এ প্রসঙ্গে বিএনপির বয়োজ্যেষ্ঠ এক সিনিয়র নেতা বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য বিএনপি বর্তমানে দুর্ভিক্ষে আক্রান্ত হয়েছে। তারেকপন্থী নেতা কর্মীরা মির্জা ফখরুল ও মওদুদপন্থী নেতাদের সহ্য করতে পারেন না। অপরদিকে জোবায়দাপন্থী নেতারা চান দলের প্রধান হোক জোবায়দা রহমান। এছাড়া বিএনপির কিছু নেতাকর্মী শর্মিলা রহমানকে দলের জন্য যোগ্য মনে করেন। বিএনপি যখন চার ভাগে বিভক্ত। ঠিক তখনই জাতীয় ঐক্যের সঙ্গে জোট করতে চাইছে বিএনপির অপরাংশ। দলীয় কোন্দোলে একটি দল এভাবে ভেঙে পড়লে আগামী নির্বাচনে কিভাবে অংশ নেবে তাই নিয়ে আমরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছি। তবে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপির অপর এক নেতা বলেন, জাতীয় ঐক্যে আমাদের কিছু নেতা যাবার কথা রয়েছে। তবে সব নেতা যেতে চাচ্ছে না। সত্যি তেতো হলেও সত্যি। বিএনপি আর আগের অবস্থানে নেই। এমতাবস্থায় বিএনপির কোনো নেতা যদি অন্য দলে গিয়ে নিজেদের জন্য সুবিধাজনক অবস্থান তৈরি করতে পারে তাতে তো দোষের কিছু নেই। তবে কিছু নেতা সিন্ডিকেট বসিয়ে দলের অভ্যন্তরের অরাজকতা বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করছে তা খুবই দুঃখজনক। নির্বাচন ঘনিয়ে আসছে। ফলে প্রতিটি দলের উচিত সংঘবদ্ধ হওয়া। কিন্তু তা না হয়ে একে অপর থেকে ভাগ হওয়ার চিন্তায় মশগুল। এটা কোনো ভাবেই কাম্য নয়। এমন চলতে থাকলে বিএনপি নাম সর্বস্বহীন একটি দলে পরিণত হতে বেশি সময় লাগবে না বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।