ব্রেকিং নিউজ-
রংপুর সদর ৩ আসনে এরশাদের পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ ** রংপুর ২ এর তারাগঞ্জে ধানের শীষের পক্ষে গণসংযোগ করেন মাহফুজ উন নবী ডন"** রংপুরের তারাগঞ্জে নৌকার পক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা ** দেশটাকে আর ৭১-এ ফিরে নিবেননা: শিবলী সাদিক এমপি:** আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করা হবে মোতাহার হোসেন** শেখ কল্লোল আহম্মেদের ৪র্থ মৃত্যু বার্ষিকীতে রিপোর্টার্স ক্লাবে দোয়া মাহফিল** রংপুর ৬ আসনে ড, শিরিন শারমিনের নির্বাচনী প্রচারনা শুরু ॥ মানুষের ঢল ॥ ** বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন উপলক্ষে রংপুরে জয়িতাগনকে সংবর্ধনা ** নীলফামারী-৪ আসনে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন স্বতন্ত্র দুই প্রার্থী ** নীলফামারীতে নারী শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার**

আল-জাজিরা নয়, রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্রের কারণে আটক শহিদুল আলম

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

9 August, 2018 -> 12:24 pm.

আল-জাজিরা টেলিভিশনে সরকার ও রাষ্ট্র বিরোধী বিরূপ মন্তব্য করার কারণে বিতর্কিত আলোকচিত্র শিল্পি শহিদুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়নি বরং বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য ইসরাইলসহ একাধিক রাষ্ট্রের সাথে ষড়যন্ত্রের কারণে তাকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ষড়যন্ত্র মূলক কর্মকাণ্ডের জন্য দীর্ঘদিন ধরে শহিদুল আলমকে নজরদারিতে রেখেছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ধারাকে ব্যাহত করতে শহিদুল আলম আন্তর্জাতিক কুচক্রী মহলের সাথে দীর্ঘদিন ধরে নাশকতার পরিকল্পনা করছিলেন। যার স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় তার ব্যবহৃত ই-মেইল, ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটঅ্যাপ বার্তায়। রাষ্ট্র বিরোধী আন্তর্জাতিক চক্রের সাথে তার গোপন আঁতাতের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েই বাংলাদেশের সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় শিল্পিরূপী এই ষড়যন্ত্রকারীকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সূত্রের খবরে জানা যায়, শহিদুল আলম দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য ইসরাইলের কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদসহ কয়েকটি সংস্থার সাথে নিয়মিত তথ্য আদান প্রদান করতেন ।তার এ জাতীয় অনৈতিক কর্মকাণ্ডের জন্য তার পারিবারিক জীবনেও অশান্তি হয়, স্ত্রী কে ছেড়ে অন্য মেয়েকে নিয়ে লিভ টুগেদার করার কথাও শোনা যায়। পাকিস্তানের মতাদর্শে দীক্ষিত হয়ে শহিদুল আলম রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কুপরিকল্পনা করতে থাকেন। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা রুখে দিয়ে দেশটিকে বিদেশি প্রভুদের পুতুল রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য কোটি কোটি টাকা নিয়েছেন শহিদুল আলম, আর এ কাজে তাকে সহায়তা করে ডা. মোঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী এর গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র। নামে বেনামে অর্থ সংগ্রহ আর বিতরণে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে ব্যবহার করেন তিনি। শহিদুল আলমের কয়েকটি ব্যাংক একাউন্টে দৈনন্দিন লেনদেনের মাত্রা দেখে আঁতকে উঠে আ্ইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। সাধারণ একজন শিল্পির ব্যাংকে লাখ লাখ ডলার লেনদেনে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। ছবি তুলে, ছবি বিক্রি করে একজন শিল্পি কি করে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করবেন সেটি বিশ্বাসযোগ্য হয়নি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখে। শহিদুল আলমের অস্বাভাবিক লেনদেনের উৎস খুঁজতে গিয়ে এসব তথ্য উঠে আসে। মূলত মোসাদ বিভিন্ন দেশ থেকে বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তিকে ব্যবহার করে দৃক গ্যালারিকে অনুদানের নামে লাখ লাখ ডলার শহিদুল আলমের একাউন্টে ট্রান্সফার করে। শিল্প-সংস্কৃতির চর্চা, মত প্রকাশের স্বাধীনতার নামের রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্রের আগুনে ধীরে ধীরে মদদ দিয়েছেন শহিদুল আলম। এদিকে গ্রেপ্তারের পরও শহিদুল আলমকে নিয়ে মিথ্যাচার অব্যাহত রয়েছে, আর এ কাজে সহায়তা করছে তার বিদেশি দোসররা । গ্রেপ্তারের পর শহিদুল আলম গণমাধ্যমকে জানান তার উপর অত্যাচার করা হয়েছে। অথচ ৮ আগস্ট সকালে শহিদুল আলমকে হাসপাতালে থেকে বের হবার সময় হাসিঠাট্টা করতে দেখা যায়। যার ভিডিও ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে সকলেই বুঝতে পারে যে তিনি পুরোপুরি সুস্থ আছেন। ডিবি পুলিশের রিমান্ডে থাকা আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর পর মেডিকেল রিপোর্ট অনুযায়ী তিনি পুরোপুরি সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. এবিএম আব্দুলাহ। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আবেদনে আদালত তার রিমান্ড মঞ্জুর করেছিল, রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে সত্য খবর বের হয়ে যেতে পারে তাই অত্যাচার ও অসুস্থতার অভিনয় করে হাসপাতালে অবস্থান করা এবং সাধারণ মানুষের সহমর্মিতা আদায় ও বিদেশী প্রভুদের সহায়তা লাভের চেষ্টা সর্বোপরি আদালতের প্রতি অবজ্ঞা প্রদর্শন তার মূল উদ্দেশ্য ছিল। কিন্তু এই মেডিকেল রিপোর্ট এর কারণে তার সেই প্রচেষ্টা ভেস্তে গেল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা । এই বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের একজন অধ্যাপক বলেন, শহিদুল আলমকে আমি দীর্ঘদিন ধরে চিনি। তিনি মুখে পরিবর্তন, রাষ্ট্র-সমাজ নিয়ে স্বপ্নের কথা বললেও আদতে তিনি পাকিস্তানপন্থী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী মনোভাবের মানুষ। বাংলাদেশকে নিয়ে তিনি এর আগেও একাধিকবার ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করেছেন। সুশীলের আড়ালে তিনি কুশীল। রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্রের কারণে তার উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।