গুজব রটনার কারখানা বিএনপি-জঙ্গি: ইনু

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

9 August, 2018 -> 4:41 am.

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, মিথ্যাচার আর গুজব রটনার কারখানা হলো পাকিস্তান, রাজাকার, বিএনপি আর জঙ্গিরা। এরা মুক্তিযুদ্ধের বিজয়কে ঠেকাতে পারেনি। বঙ্গবন্ধুকেও খাটো করতে পারেনি। আর শেখ হাসিনার বিস্ময়কর অগ্রযাত্রাকেও বন্ধ করতে পারবে না। আসুন এভাবেই আমরা জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা জানাই। ছাত্র আন্দোলনের কাঁধে চড়ে যারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চেয়েছিল, তারা ওই ঘোলা পানিতে ডুবে মরবে। মিথ্যাচার গুজব রটনাকারীদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার কঠোরভাবে ধংস করে দেবে। বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কমান্ড আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন তিনি। শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সময় গুজব রটনা আর মিথ্যাচারকে গণমাধ্যমের কর্মীরা মোকাবেলা করেছেন জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, তারা সংবাদমাধ্যমে বলেছেন কোনো ছাত্র মারা যায়নি, নারী লাঞ্ছিত হয়নি। আপনারা বলেছেন, কোমলমতি শিশুদের ওপরে সরকার কোনো আক্রমণ করেনি। কোমলমতি শিশুদের আন্দোলনের কাঁধে চড়ে চক্রান্তকারীরা এটাকে অন্যখাতে প্রবাহিত করার জন্যে যেখানেই দাঙ্গা-হাঙ্গামা করার চেষ্টা করেছে সেখানেই পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে। সুতরাং আপনারা গণমাধ্যমের কর্মীরা মিথ্যাচার, গুজব রটনার বিরুদ্ধে শক্তভাবে দাঁড়াচ্ছেন, গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়াচ্ছেন বলেই আমরা সামনের দিকে যেতে পেরেছি। তিনি বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে তেঁতুল হুজুর তথা হেফাজতিদের মহাকাণ্ড এবং দুষ্কর্মের সময় কেউ বিশ্বাস করতে পারেনি যে সরকার থাকবে, কিন্তু শেখ হাসিনা টিকে গেছেন। ১৪ সালের ভোটের এক বছরের মাথায় ৯৩ দিনের আগুন সন্ত্রাসে সরাসরি নেতৃত্ব দেন (বিএনপি চেয়ারপারসন) খালেদা জিয়া। তখন কী অবস্থা হয়েছিল আপনারা জানেন। এই দুই দিনের ছাত্র আন্দোলনে একটু পরিবহনের এদিক -ওদিক হয়েছে। তাতেই আপনারা হাসফাঁস করছেন। ৯৩ দিন দেশে গাড়ি চলেনি। আন্তঃজেলা গাড়ি চলেনি, ট্রেন জ্বলেছে, ট্রেন লাইন পড়ে গেছে, এই অবস্থায় সবাই মনে করেছিল শেখ হাসিনা থাকছেন না, কিন্তু শেখ হাসিনা টিকে গেছেন। সুতরাং চক্রান্ত করলেই যে সরকার উৎখাত হয়ে যাবে সেটা ভাবার সুযোগ নেই। জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সাংবাদিক শামসুদ্দিন আহমেদ পেয়ারা, আজিজুল ইসলাম ভূইয়া, শাহজাহান মিয়া, মৃনাল কৃষ্ণ রায়, তরুণ তপন চক্রবর্তী প্রমুখ।