শিরোনাম-
কুড়িগ্রাম উলিপুরে স্কুল শিক্ষিকা অপহরনের চেষ্টা** 'হাসিনাকে হত্যা করতে গ্রেনেড হামলা হয়েছিল' রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় রেজাউল করিম রাজু ** দিনাজপুরে গোর-এ শহিদ ময়দানে ঈদের জামাত ৯টায়** ঠাকুরগাঁওয়ে চাচার হাতে ভাতিজি খুন** রংপুরে শেষ মূহুর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা** রংপুরে ক্যান্সারে আক্রান্ত দীপ্ত টিভির সাংবাদিকের সুস্থতার জন্য ওয়াদুদ আলীর দোয়া কামনা ** রংপুরে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৮টায়** যেভাবে কোরবানির পশুর যত্ন নিতে হবে** লালমনিরহাট ২ বিএনপি র মনোনয়ন প্রত্যাশী তালিকায় ইন্জিনিয়ার কামাল এগিয়ে** লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের বিভ্ন্নি গ্রামে ঈদুল আযহার নামাজ আদায় **

২০ টাকা দিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ!

অনলাইন নিউজ

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , পঞ্চগড়

9 August, 2018 -> 4:36 am.

পঞ্চগড় সদর উপজেলার সাতমেরা ইউনিয়নে সাত বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে অচেতন অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছে শিশুটি। আজ বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। শিশুটির বাবা-মা জানান, তাঁদের মেয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। আজ দুপুরে সে বাড়ির পাশে খেলছিল। ওই সময় বাসায় কেউ ছিলেন না। তখন একই এলাকার অটোভ্যানচালক আবদুল আজিদ (৪৫) মেয়েকে তাঁর বাসায় ডেকে নেন। মেয়েকে ঘরে নিয়ে হাতে ২০ টাকার নোট ধরিয়ে দেন আজিদ। একপর্যায়ে আজিদ মেয়েকে ধর্ষণ করেন। মেয়ে চিৎকার দিলে আজিদ ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান। পরে স্কুলছাত্রী অস্বাভাবিক অবস্থায় বাড়িতে এলে কী হয়েছে জানতে চাইলে সে ঘটনাটি তার বাবা-মাকে জানায়। পরে শিশুটির বাবা মা তাৎক্ষণিক তাকে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আমীর হোসেন ও ডা. মনসুর আলম চিকিৎসা দিয়ে শিশুটির রক্তপাত বন্ধ করেন। শিশুটি বর্তমানে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। খবর পেয়ে পঞ্চগড় থানা পুলিশ শিশুটিকে হাসপাতালে দেখতে যান এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আমীর হোসেন জানান, শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে কি না তা ডাক্তারী পরীক্ষা ছাড়া বলা যাচ্ছে না। তবে শিশুটির নিম্নাঙ্গে আঘাত পেয়েছে। এ কারণে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পঞ্চগড় থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহিনুজ্জামান শাহিন বলেন, ‘ঘটনার খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে যাই। অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলেছি। মামলা প্রক্রিয়াধীন। আসামি ধরার চেষ্টা চলছে।’