শিরোনাম-
কুড়িগ্রাম উলিপুরে স্কুল শিক্ষিকা অপহরনের চেষ্টা** 'হাসিনাকে হত্যা করতে গ্রেনেড হামলা হয়েছিল' রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় রেজাউল করিম রাজু ** দিনাজপুরে গোর-এ শহিদ ময়দানে ঈদের জামাত ৯টায়** ঠাকুরগাঁওয়ে চাচার হাতে ভাতিজি খুন** রংপুরে শেষ মূহুর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা** রংপুরে ক্যান্সারে আক্রান্ত দীপ্ত টিভির সাংবাদিকের সুস্থতার জন্য ওয়াদুদ আলীর দোয়া কামনা ** রংপুরে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৮টায়** যেভাবে কোরবানির পশুর যত্ন নিতে হবে** লালমনিরহাট ২ বিএনপি র মনোনয়ন প্রত্যাশী তালিকায় ইন্জিনিয়ার কামাল এগিয়ে** লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের বিভ্ন্নি গ্রামে ঈদুল আযহার নামাজ আদায় **

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি বাড়লেও বাড়েনি ভারতে পন্য রপ্তানি

অনলাইন নিউজ

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , দিনাজপুর

7 August, 2018 -> 11:58 pm.

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পন্য আমদানি বাড়লেও বাড়েনি ভারতে পন্য রপ্তানি । বানিজ্য ভিত্তিক এ বন্দর দিয়ে একমাত্র রপ্তানী খাতেই বছরে কোটি কোটি ডলার আয় করা সম্ভব। কিন্তু কাগজীয় জটিলতা ও সুযোগ সুবিধার অভাবে ডলার আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। এদিকে রপ্তানি কারকরা বলছে বাংলাদেশ থেকে এ হিলিবন্দর দিয়ে শাক সবজি , কলা,আলুসহ বেশ কিছু পন্যের ভারতে ব্যাপক চাহিদা থাকার পরও রফতানি করতে পারছেনা তারা। ১৯৮৬ সাল থেকেই হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানী- রপ্তানী কার্যক্রম শুরু হয়। বন্দরের গতি বৃদ্ধি ও সরকারের রাজস্ব বাড়াতে ২০০৫ সালে এটিকে বে-সরকারী খাতে ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু আমদানী খাতে এর গতি বৃদ্ধি পেলেও কাগজীয় জটিলতা ও সুযোগ সুবিধার অভাবে রপ্তানী খাত ঝিমিয়ে পড়ে। বাংলাদেশী কলা , পেয়াঁজের ফুলকা , আলু সহ সব ধরনের সবজি ও গার্মেন্সের ঝুট কাপড় সহ ভারতের বাজারে বাংলাদেশের বেশকিছু পন্যের ব্যাপক চাহিদা থাকার পরও সামান্য কিছু সমস্যার কারনে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশ থেকে চাহিদা অনুযায়ী পন্য রপ্তানি করতে পারছে না। তবে ব্যবসায়িদের দাবি দু-দেশের সরকার যদি আলোচনা মাধ্যমে সমস্যা গুলোর সমাধান করে তাহলে মাসে কোটি কোটি ডলারের পণ্য বাংলাদেশ থেকে রফতানি করা সম্ভব বলে মনে করেন ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। এদিকে কাষ্টমস কর্মকর্তা জানান, গত গেল অর্থ বছরে হিলি বন্দর থেকে চিটাগুড়, রাইস ব্রান্ড (তুষের তেল), মটর পাম্প সহ বিভিন্ন পণ্য ভারতে রপ্তানি করে যার পরিমান ২ হাজার মেট্রিক টন । আর এ থেকে ১৬লাখ ৫৯ হাজার মার্কিন ডলার আয় করেছে কাষ্টমস কর্তৃপক্ষ। যা বাংলাদেশী টাকায় ১৬ কোটি ৬৮ লক্ষ টাকার সমান।