বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন কোন পথে?

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

7 August, 2018 -> 1:03 pm.

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে রাজনৈতিক ফায়দা লুটার জন্য ছাত্রবেশে মাঠে নেমেছে কুচক্রীরা। এদের সরাসরি মদদ দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত এবং বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি কয়েকটি দূতাবাস ভবন। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক ও ন্যায্য দাবির আন্দোলনটিকে সরকার পতনের আন্দোলন হিসেবে ব্যবহার করতে ইতোমধ্যে পুলিশ-প্রশাসন এবং জনসাধারণ এমনকি ক্ষমতাসীন দলের কার্যালয়ে হামলাও চালিয়েছে ছাত্র নামধারী বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা। আন্দোলনের নামে রাজধানীজুড়ে তাণ্ডব চালিয়ে নগরবাসীদের আতঙ্কিত করে তুলেছে তারা। তাদের আতঙ্কে সাধারণ স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী, অফিসমুখী মানুষ, রোগী, হজযাত্রীরা চলাচল করতে ভয় পাচ্ছেন। আন্দোলন-সংগ্রাম ও দাবি আদায়ের নামে ছাত্র নামধারী কুলাঙ্গাররা গাড়ির লাইসেন্স চেক, কাগজপত্র চেক করার নামে চুরি-ছিনতাইয়ে মেতে উঠেছে। সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে নিজেদের পাল্লা ভারি করতে এবং আওয়ামী লীগ সরকারের উপর প্রতিশোধ নিতেই মরিয়া হয়ে উঠেছে তারা। যে আন্দোলন প্রথম দুদিন সাধারণ ছাত্রদের হলেও তৃতীয় দিন থেকেই আন্দোলনের নেতৃত্ব নিয়ে নেয় ছাত্রদল-শিবির কর্মীরা। যেহেতু অতীতে ধ্বংসাত্মক রাজনৈতিক আন্দোলনে পুলিশের বাধার সম্মুখীন হওয়ায় পুলিশের উপর প্রতিশোধ নিতে বেছে বেছে পুলিশের উপর সন্ত্রাসী ও জঙ্গি কায়দায় হামলা চালাচ্ছে ছাত্র নামধারী বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা। প্রকাশ্য দ্বিবালোকে দেশীয় অস্ত্র হাতে মহড়া দিচ্ছে ছাত্র নামধারী সন্ত্রাসীরা। স্কুল-কলেজের ইউনিফর্ম পরে এসব হামলা চালাচ্ছে তারা। স্কুল ব্যাগে অস্ত্র, পাথর বহন করে রাষ্ট্রীয় বাহিনীর উপর হামলা চালানো হচ্ছে। এছাড়া ফেসবুক ও ইউটিউবে পুরাতন, মিথ্যা তথ্য ও ছবি আপলোড করে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করছে বিএনপি-জামায়াত। লক্ষ্য পূরণের জন্য অখ্যাত তারকা, ফেসবুক তারকাদের পয়সা দিয়ে মিথ্যা ও যুক্তিহীন তথ্য ছড়ানো হচ্ছে যাতে করে সাধারণ মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে সন্ত্রাসীদের পক্ষ নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়ে। তাই মিথ্যা ও গুজবে কান না দিয়ে চোখ-কান খোলা রাখার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ করা হয়েছে। আসুন সকলে মিলে এই সন্ত্রাসী ও জঙ্গিদের বয়কট করি। তাদের ঘৃণা করি।