শিরোনাম-
কুড়িগ্রাম উলিপুরে স্কুল শিক্ষিকা অপহরনের চেষ্টা** 'হাসিনাকে হত্যা করতে গ্রেনেড হামলা হয়েছিল' রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় রেজাউল করিম রাজু ** দিনাজপুরে গোর-এ শহিদ ময়দানে ঈদের জামাত ৯টায়** ঠাকুরগাঁওয়ে চাচার হাতে ভাতিজি খুন** রংপুরে শেষ মূহুর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা** রংপুরে ক্যান্সারে আক্রান্ত দীপ্ত টিভির সাংবাদিকের সুস্থতার জন্য ওয়াদুদ আলীর দোয়া কামনা ** রংপুরে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৮টায়** যেভাবে কোরবানির পশুর যত্ন নিতে হবে** লালমনিরহাট ২ বিএনপি র মনোনয়ন প্রত্যাশী তালিকায় ইন্জিনিয়ার কামাল এগিয়ে** লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের বিভ্ন্নি গ্রামে ঈদুল আযহার নামাজ আদায় **

তারেকের নির্দেশ মেনে পস্তাচ্ছেন বিএনপির তিন নেতা

অনলাইন নিউজ

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , নিউজ ডেক্স

7 August, 2018 -> 12:59 pm.

রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলটির তিন নেতার বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করা হয়েছে। মামলার অপর দুই আসামি হলেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। জানা গেছে, মামলার আঁচ পেয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন এই তিন নেতা। বিএনপির একাধিক সূত্র জানায়, তারেক রহমানের প্ররোচণায় পড়ে ছাত্রদের আন্দোলনকে রাজনৈতিক রূপ দিয়ে সরকার পতন ঘটালে মূল্যায়িত হওয়ার প্রলোভনে হিংসার বানী ছড়িয়েছেন তারা। তাদের উস্কানির কারণে গ্রহণযোগ্য আন্দোলনটি বলয় থেকে ছিটকে পড়ে সরকার ও রাষ্ট্র বিরোধী আন্দোলনের দিকে ঝুঁকে পড়ে। বিএনপি নেতাদের কারণে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা পুলিশ প্রশাসনকে অপমান করেছে, অপদস্ত করেছে। আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা চালিয়েছে। তাদের উস্কানির কারণে অখ্যাত সেলিব্রেটিরা ফেসবুক লাইভ করে মৃত্যু ও ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য গুজব ছড়িয়ে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করেছে। সূত্র বলছে, সব রাজনৈতিক আন্দোলনে প্রতিবার ব্যর্থ হয়ে শিক্ষার্থীদের গ্রহণযোগ্য ও নৈতিক আন্দোলনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে রাজনৈতিক ফায়দা লুটার জন্য বিএনপি উঠে পড়ে লেগে যায়। তারেক রহমান তিন নেতাকে পরবর্তী সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়ারও লোভ দেখান। তারেক রহমানের প্রলোভনে অন্ধ হয়ে সত্য-মিথ্যা যাচাই না করেই উস্কানি দিয়ে কোমলমতি ছাত্রদের মারমুখী ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার আহ্বান জানান তারা। এমনকি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী তো আন্দোলনে ছাত্রদলের কর্মী ভিড়িয়ে আন্দোলনের রাজনৈতিক ফায়দা লুফে নেওয়ার জন্য নওমি নামের এক যুবককে ফোনে নির্দেশ দেন। আমীর খসরুর সেই ভিডিও ভাইরাল হলে আন্দোলনে বিএনপির সম্পৃক্ততা ও নাশকতার পরিকল্পনা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে যায়। এখন আন্দোলন করে আওয়ামী লীগ সরকারের পতনে তারেক রহমানের নির্দেশ মেনে নিজেদের ভুল স্বীকার করে বিবেকের দংশনে পুড়ছেন তারা। সূত্র বলছে, বুদ্ধি না খাটিয়ে উস্কানিতে কান দিয়ে নিজেদের দুর্ভাগ্যের জন্য তারেক রহমানকে দুষছেন সিনিয়র তিন নেতা। তাই আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী ছাত্রদল ও শিবির কর্মীদের ফিরে আসার আহ্বানও জানিয়েছেন তারা। এ বিষয়ে অতি সম্প্রতি একটি প্রেস ব্রিফিং করা হবে বলেও জানা গেছে।