স্বৈরশাসন প্রতিষ্ঠার শিক্ষা নিতে উত্তর কোরিয়া সফর করবেন তারেক

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , বিষেশ বুলেটিন

7 August, 2018 -> 12:26 pm.

সরকার পতনের শিক্ষা নিতে এবং একনায়কতন্ত্র শাসন প্রতিষ্ঠার আদ্যোপান্তে জানতে এবার উত্তর কোরিয়া সফর করবেন লন্ডনে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমান। সূত্র বলছে, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় বাংলাদেশের উন্নতি সহ্য করতে না পেরে তাই আগামীতে বাংলাদেশে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে উত্তর কোরিও নেতা কিম জং উনের মতো আজীবন দেশ শাসন করার স্বপ্ন দেখছেন তারেক রহমান। তাই আওয়ামী লীগ সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে আজীবন শাসক হওয়ার জন্যই অভিনব ট্রেনিং নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন তিনি। ট্রেনিং ফি এবং সফর বাবদ অর্থ সংগ্রহ করার জন্য তারেক ইতোমধ্যে ফোন করে মির্জা ফখরুল, আব্বাস, মওদুদ আহমদ ও আবদুল আউয়াল মিন্টুকে চাঁদা সংগ্রহ করা আদেশ দিয়েছেন। লন্ডন বিএনপি নেতা মালেকের এক ঘনিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিগত চার বছরের অধিক সময়ের আওয়ামী লীগ শাসনামলে একাধিক ইস্যু পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি বিএনপি-জামায়াত। প্রতিবারই আন্দোলন করতে গিয়ে খেই হারিয়ে ফেলে দলটি। শুরুতে আন্দোলন দুর্বার হলেও মাঝপথে এসে কর্মীরা সঠিক নেতৃত্বের অভাবে দিশেহারা হয়ে মাঠ ছেড়ে পালিয়ে যায়। সিনিয়র নেতারাও কর্মীদের একত্রিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রতিবার। এছাড়া আওয়ামী লীগ সরকার গত পাঁচ বছরে যে পরিমাণ উন্নয়ন করে, জনগণের সেবা করেছে তাতে সাধারণ মানুষকে আন্দোলনে কাছে পায় না বিএনপি। বিএনপি পেছনের দরজা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় যেতে চায়। যেটি এদেশের গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষ কোনো দিন মেনে নিবে না। উন্নয়নের বিপরীতে জ্বালাও-পোড়াও সহ্য করবে না মানুষ। বাংলাদেশের যত উন্নয়ন, যত অর্জন তার বেশির ভাগই আওয়ামী লীগ সরকারের চেষ্টায় হয়েছে। অযৌক্তিক আন্দোলন করে বর্তমান সরকারকে ক্ষমতাচ্যূত করা যাবে না সেটি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন তারেক রহমান। তাই এবার অগণতান্ত্রিক উপায়ে বাংলাদেশ সরকারের পতন ঘটিয়ে আজীবন স্বৈরশাসন প্রতিষ্ঠা করার হাতে কলমে শিক্ষা নিতে উত্তর কোরিয়া সফর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারেক রহমান। কিম জং উনের সাথে সাক্ষাত করে, সেখানে অবস্থান করে উত্তম উপায়ে স্বৈরশাসন প্রতিষ্ঠা, জনগণকে শক্ত হাতে দমন করা, শোষণ করার শিক্ষা নিবেন তারেক। তারেক রহমানের এমন প্রস্তাবে রাজি হয়েছে দেশটি। তবে পরামর্শ প্রদান ও হাতে কলমে স্বৈরশাসন শেখানোর জন্য তারেক রহমানকে ৫ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করার হুকুম দিয়েছেন কিম জং উন। তাই শিক্ষা গ্রহণের জন্য উদগ্রিব হয়ে আছেন তারেক। এন্ট্রি ফি সংগ্রহ করার জন্য দলটির একাধিক সিনিয়র নেতাকে আদেশ দিয়েছেন তারেক। প্রয়োজনে মির্জা ফখরুল, মওদুদ ও আবদুল আউয়াল মিন্টুকে তাদের সম্পত্তি বিক্রি করার জন্য অনুরোধ করেছেন তিনি। তারেক রহমানের এমন অনুরোধ সুলভ আদেশে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন নেতারা। ভয়ে ও আতঙ্কে অনেক সিনিয়র নেতারা ফোন বন্ধ করে রেখেছেন। তারেক রহমানের ফোন কলকে জমদূতের কল হিসেবে বিবেচনা করছেন নেতারা।