শিরোনাম-

রংপুরের পীরগঞ্জে সড়ক পাকা করণের সরঞ্জামাদী স্কুলে রাখায় শিক্ষার্থীরা বিপাকে!

অনলাইন নিউজ

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , রংপুর

7 August, 2018 -> 11:28 am.

রংপুরের পীরগঞ্জে পারবোয়ালমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের যোগসাজসে এক ঠিকাদারকে সড়ক পাকা করণের সরঞ্জামাদী রাখার জন্য মাঠ ভাড়া দিয়েছেন মর্মে অভিযোগ উঠেছেন। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে হিমশিম খাচ্ছে। জানা গেছে, রংপুর সড়ক বিভাগের পীরগঞ্জ প্রকৌশলী (এলজিইডি)’র অধীনে উপজেলার দুধিয়াবাড়ী বটপাড়া থেকে সুজারকুঠি স্কুল পর্যন্ত ১ হাজার ৮শ মিটার সড়কটির টেন্ডার আহ্বান করেন কর্তৃপক্ষ এতে বরাদ্দ হয় প্রায় কোটি টাকা। টেন্ডারের পর লটারীর মাধ্যমে মের্সাস আব্দুল্লাহ আল মামুন, কলেজ রোড, রংপুর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি পায়। গতকাল মঙ্গলবার সরেজমিনে বিদ্যালয়টিতে গিয়ে দেখা গেছে প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের মিয়া হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে বিদ্যালয় ত্যাগ করেছেন। ওই বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষক মাহবুবা বেগমকে বিকালে ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণির ইংরেজি বিষয়ে পরীক্ষা নিতে দেখা গেছে। ঠিকাদারের সড়ক নির্মাণের টায়ারের কালোধোয়া রুম গুলোতে ছেয়ে গেছে। অনেক শিক্ষার্থীরা মুখে রুমাল চেপে পরীক্ষা দিচ্ছে। এতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা বিব্রতবোধ ও তাদের অভিভাবকেরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অপর দিকে ওইদিন সকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঠিকাদার আব্দুল আল মামুন ওরফে লাবলু ইঞ্জিনিয়ার অফিসের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলতাব হোসেন না থাকায় নামে মাত্র বিটুমিন দিয়ে সড়কটি কাজ সম্পন্ন করেছেন। এব্যাপারে ইঞ্জিনিয়ার অফিসের উপসহকারী প্রকৌশলী জানান কাজটি সঠিক ভাবেই হচ্ছে। তবে প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলে সরঞ্জাম রেখে কাজ করছেন। প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের মিয়া জানান ঠিকাদার জোর করে আমার অনুমতি ছাড়াই মালামাল রেখেছেন। বিষয়টি আমি শিক্ষা অফিসারকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এবিষয়ে শিক্ষা অফিসার জোবায়েদা রওশন জাহান জানান ঠিকাদার মালামাল কোথায় রাখবে সেটা তাদের বিষয়। তবে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার বিষয়টি সম্পর্কে আমাকে অবগত করেছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমল কুমার ঘোষ জানান শিক্ষা অফিসার সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিব।