লালমনিরহাটের পাটগ্রামে কৃষি শুমারি কাজের অনিয়ম

রকিবুল হাসান রিপন

ষ্টাফ রিপোর্টার, লালমনিরহাট

23 June, 2019 -> 4:33 am.

লালমনিরহাট পাটগ্রাম উপজেলায় সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যানব্যুরো (বিবিএস) পরিচালিত সরকারের গুরুত্বপূর্ণ কৃষি শুমারির কাজ ৯ জুন শুরু হয়ে শেষ হয় ২০ শে জুন গত বৃহস্পতিবার। গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পোস্টার ব্যানার থাকার কথা থাকলেও সেটিও তেমন চোখে পড়েনা, প্রচারÑপ্রচারনা নেই বললেই চলে। গত বৃহস্পতিবার কৃষি শুমারির কাজ শেষ হলেও পাটগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে অনেক বাড়ীতে তথ্য সংগ্রহ করেনি তথ্য সংগ্রহকারীরা কোন-কোন তথ্য সংগ্রহকারী নামে মাত্র তথ্য সংগ্রহ করেছে এলাকায় গিয়ে শুধু ব্যক্তির নাম এবং মোবাইল নম্ববর নিয়েছে । আর কোন তথ্য তারা চাইনি এবং জিজ্ঞাস করলে তারা ভালভাবে কোন উত্তর দিতে পারেনি। অভিযোগ রয়েছে তথ্য সংগ্রহকারী এস এস সি পাশ করেনি (আন্ডার মেট্রিকপাশ) এমন ব্যক্তি ও রয়েছে। তিনি নিজে ভাল ভাবে লিখতেও পারে না যার কাজ করছেন অন্যজন। তথ্য সংগ্রহকারী আন্ডার মেট্রিক পাশ সাগর বাবু হয়েও তথ্য সংগ্রহকারী কাজ নিয়েছেন আফজাল ইসলাম নামের একজন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে আফজাল ইসলাম বলেন,“সাগর বাবু’র নাম তথ্য সংগ্রহকারীতে রয়েছে । সে একদিন টেনিং করেছে এবং সে সেখানে লিখতে না পারায়। আমাকে এ কাজ দিয়েছে । এর পরিবর্তে তথ্য সংগ্রহের কাজের কিছু টাকা তাকে দিতে হবে । বাউরা বাজারের ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম লেবু ও বাউরা নবী নগর গ্রামের সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা বাজারে কৃষি শুমারির পোস্টার ব্যানার দেখিনি। কৃষি শুমারির শেষ হলে ও আমাদের বাড়ীতে কেউ তথ্য সংগ্রহ করতে আসেনি। বাউরা ইউনিয়নের নবী নগর গ্রামের আমেনা বেগম (৬০) নুরজাহান বেগম (৫৬), কৃষক এজিদুল ইসলাম (৩৮) শ্রী মতি শ্যামলী দাস (২৭), মাধবী দাস (২২) কল্পনা দাস (৩৫) সহ আর দশ ব্যক্তি জানান, কৃষি শুমারি কি সেটা তারা জানেনা । তাদের বাড়ীতে তথ্য সংগ্রহ করতে কেউ আসেনি। একই গ্রামের শ্রী: হরিদাস (৪০) জানান, তারকাছে তথ্য সংগ্রহকারী এসে শুধু নাম আর মোবাইল নম্বর নিয়ে গেছে । কিসের তথ্য সংগ্রহ করতেএসেছে সে বিষয়ে কিছু বলেনি। এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলার জুনিয়ার পরিসংখ্যান সহকারী নারায়ন চন্দ্র কর্মকার বলেন,“ যে গুলো বাড়ী গণনায়বাদ পড়েছে সেগুলো খুজে বের করে আবার তথ্য নেওয়া হচ্ছে। লেখতে পারেনা এমন তথ্য সংগ্রহকারী নাম কিভাবে আসলো,তিনি কিভাবে এই কৃষি শুমারির কাজ করতেন জানতে চাইলে এ বিষয়ে তিনি বলেন এসব নাম আমরা দেইনি এসব নাম দলীয় নেতারাই দিয়েছে। ওর পরিবর্তে আমরা আরেক জনকে দিয়ে কাজ করিয়েছি।” এ বিষয়ে জেলা পরিসংখ্যান অফিস লালমনিরহাট জেলার উপ-পরিচালক ইমরান হোসেন প্রধান বলেন, “এসএসসি পাশ করেনি (আন্ডার মেট্্িরক পাশ) এমন ব্যক্তির তথ্য সংগ্রহকারীতে নাম আছে আমার জানা নেই। যদি থাকে খোজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কৃষি শুমারিতে যাদের তথ্য নেওয়া হয়নি( নামবাদ পড়েছে ) তাদের কয়েক দিনের মধ্যে তাদের তথ্য নেওয়া হবে ।