ব্রেকিং নিউজ-
পাঁচবিবি সমিরণ নেছা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সমস্যায় জর্জরিত** শনিবার রংপুরে সাংবাদিকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ** কুড়িগ্রামে ৪০তম জাতীয় সাইক্লিং প্রতিযোগীতার উদ্বোধনী ** পীরগঞ্জে পাষান্ড স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার নাবালিকা গৃহ বধু ** রাণীশংকৈলে পুকুর খনন করতে গিয়ে ২টি বিষ্ণু মুর্তি উদ্ধার** রংপুরে বখাটেদের হুমকিতে স্কুলে যেতে পারছে না ১০ম শ্রেণীর ছাত্রীর** রংপুরে রিপোর্টার্স ইউনিটির তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ** রনজিৎ দাসের একক চিত্র প্রদর্শনী ‘রুপসী রংপুর’ সমাপনী** রংপুরে প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি পেশ ** রংপুরে দারিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস, শিক্ষা সামগ্রী ও ঋণ বিতরণ**

ঠাকুরগাঁওয়ে ডিজিএফআই পরিচয়ে প্রতারণা, চার ব্যক্তির দণ্ড

নিউজ ডেক্স

রংপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম , ঠাকুরগাঁও

10 April, 2019 -> 11:47 am.

ভুয়া ডিজিএফআই পরিচয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের সাথে প্রতারণা করার অভিযোগে ইসমাইল হোসেন, রফিউল ইসলাম, বাবর আলী ও নজরুল ইসলাম নামে চার ব্যক্তিকে সাত দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ বুধবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক অফিস কক্ষে প্রতারণা করার সময় তাদের হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। আটককৃত ইসমাইল হোসেন ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল উপজেলার সাবুডাঙ্গা চেংমারি গ্রামের আজিম উদ্দীনের ছেলে, রফিউল ইসলাম একই উপজেলার ভান্ডারা গ্রামের রিয়াজুল ইসলাম ও নজরুল ইসলাম এমদাদুল হকের ছেলে এবং বাবর আলী একই উপজেলার নন্দুয়া সন্দারই গ্রামের রওশন আলীর ছেলে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) তরিকুল ইসলাম জানান, দুপুরে ভুয়া ডিজিএফআই পরিচয়ে চারজন ব্যক্তি গণভবনের ডিজিএফআই সাজ্জাদ চৌধুরীর স্বাক্ষরিত একটি চিঠি নিয়ে জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিমের কক্ষে প্রবেশ করে এবং টেন্ডার বিষয়ে চাপ প্রয়োগ করে। এ সময় জেলা প্রশাসকের সন্দেহ হলে তিনি গোপনে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা প্রতারণার কথা স্বীকার করে। পরে তাদের টাউট আইন-৮০৭৯ ,আইনে অপরাধের অভিযোগে সাত দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ সময় আটকৃত প্রতারকদের কাছ থেকে তিনটি মোটরসাইকেল, ৪টি মোবাইল সেট, নগদ ২২ হাজার ৭০৪ টাকা ও বিভিন্ন কাগজ জব্দ করা হয়। ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে ফোন পাওয়ার পর পুলিশ জেলা প্রশাসকের কক্ষ থেকে চার প্রতারককে আটক করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের সাত দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিলে পুলিশ তাদের ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে প্রেরণ করে। প্রতারক চক্রের সাথে আরো কেউ জড়িত রয়েছে কি না পুলিশ তা তদন্ত করে দেখছে।